বিকাশ এজেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম | বিকাশ এজেন্ট ব্যবসা | Bkash

Share

বাংলাদেশের লেনদেন সহজ করার ক্ষেত্রে বিকাশ অসামান্য অবদান রেখেছে বাংলাদেশের জনগণের মধ্যে বিকাশ অ্যাপ ব্যাবহার করেননি অথবা বিকাশের সুবিধা গ্রহণ করেননি এমন লোক খুব কমই পাওয়া যাবে। আজকে আমরা যে বিষয়টা নিয়ে আলোচনা করব তা হচ্ছে বিকাশ এজেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম আপনি যেই পেশার লোক হন না কেন আপনার কাজের পাশাপাশি বিকাশ এজেন্ট নিয়ে আপনি আপনার ইনকাম আরো বাড়িয়ে ফেলতে পারেন।

যাইহোক আশা করি আপনারা সবাই বিকাশ সম্পর্কে জানেন আর এখন যারা পোষ্টটি পড়ছেন তারা অবশ্যই বিকাশ এজেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম জানার জন্যই পোষ্টটি পড়ছেন অনেকেই হয়তো বা ভয় পাচ্ছেন বিকাশ এজেন্টের নাম শুনে কত টাকায় না জানি লাগে বিকাশ একাউন্ট খুলতে।

বিকাশ এজেন্ট একাউন্ট খুলতে কোনো টাকা লাগে না

আপনি দুইটি উপায়ে বিকাশ এজেন্ট একাউন্ট খুলতে পারেন।

  • ১: যিনি এজেন্ট হবেন তার নাম দিতে হবে এখানে অবশ্যই তার National ID কার্ড এর নামটি লিখতে হবে এরপর দ্বিতীয় ঘরে জাতীয় পরিচয়পত্র বা ড্রাইভিং লাইসেন্স এর যেকোনো একটির নম্বর প্রবেশ করাতে হবে।

২: আপনি যদি ব্যবসায়ীক হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনার একটি ব্যবসায়িক লাইসেন্স রয়েছে, যাকে ট্রেড লাইসেন্স নামে বলা হয়, দ্বিতীয় ঘরে আপনারা আপনার ট্রেড লাইসেন্স ফি বসিয়ে দিবেন।। ট্রেড লাইসেন্স কিভাবে করতে হয় সে সম্পর্কিত লেখা আমাদের ওয়েবসাইটে আপনারা পেয়ে যাবেন।।

  • ৩: এরপর আপনার মোবাইল নাম্বারটি লিখে দিবেন এর সাথে আপনার দোকান বা প্রতিষ্ঠানের নাম লিখে দিতে পারেন।

৪: এরপরে একটি সচল ইমেইল দিন মনে রাখবেন এই ই-মেইলে বিকাশ আপনার প্রয়োজনীয় মেসেজ আপনাকে প্রদান করে থাকবে তাই অবশ্যই সচল এবং আপনার ফোনে চালু আছে এমন ইমেইল, যার পাসওয়ার্ড মনে আছে এমন একটি ইমেইল সেখানে দিবেন।

৫.ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের নাম সুন্দরভাবে উল্লেখ করবেন আপনার পূর্ণাঙ্গ ঠিকানাটা সুন্দরভাবে উল্লেখ করবেন আপনার ফরমটি সাজানো-গোছানো থাকলে কর্তৃপক্ষের জাস্টিফাই করতে সুবিধা হবে এবং আপনার প্রতি তাদের সুদৃষ্টি থাকবে।

অবশেষে আপনাকে রিক্যাপচা পূরণ করতে হবে আপনি রোবট ন এটা প্রমাণ করার জন্য আপনাকে রিক্যাপচা পূরণ করতে হবে এখানে সাধারণত যোগ, বিয়োগ, গুণ, ভাগ ইত্যাদি সহজ সমাধান আসে এটা অবশ্যই সঠিকভাবে পূরণ করতে হবে এরপর জমা দিন বাটনের উপর ক্লিক করুন।

উল্লেখ্য, বলে রাখা ভালো বিকাশ আপনাকে যে ফরমটি দিবে তার সাথে আরও 6 টি পেপার দিবে আপনি একটু সময় করে সেগুলো মনোযোগ সহকারে পড়ে নিবেন। এতে তাদের নির্দেশনাবলী উল্লেখ করা থাকবে।কিছু বিধিনিষেধ তা উল্লেখ করা থাকবে।

আপনি এগুলো ভালোভাবে পড়ে নিলে আপনার বিকাশ ব্যবহার করার ক্ষেত্রে সুবিধা হবে এভাবে খুব সহজ পদ্ধতিতে আপনারা বিকাশ এজেন্ট হতে পারেন।।

%d bloggers like this: